যে ১৪টি কারণে রোজা মাকরুহ হয়

  • অনলাইন ডেস্ক
  • আপডেট সময় : ০৭:১৪:৫৩ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৮ মার্চ ২০২৩
  • ১৬৭১ বার পড়া হয়েছে

ইসলাম ধর্মে রোজা একটি ফরজ ইবাদত। ইসলামের পাঁচটি মূল স্তম্ভের মধ্যে রোজা তৃতীয়। তাই পবিত্র রমজান মাসে বিশ্বের সব ধর্মপ্রাণ মুসলমান রোজা রাখার ধর্মীয় বিধান পালন করে থাকেন। এ মাসজুড়ে মুসল্লিরা আল্লাহর সন্তুষ্টি লাভে রোজা রাখেন। ইবাদতে মশগুল হন। দান-সদকা করেন।

এই রোজা পালনের কিছু বিধিবিধান রয়েছে। সেসব পালন না করলে রোজা মাকরুহ বা ভেঙে যেতে পারে। তাই সবরকম বিধিবিধান মেনে অত্যন্ত পবিত্রতার সঙ্গে রোজা পালন করতে বলা হয়েছে। অন্যথায় ছোটখাটো কিছু ভুল থেকে শুরু করে বড় বড় কিছু কাজে রোজা মাকরুহ হয়ে যেতে পারে। এর পবিত্রতা নষ্ট হতে পারে।

রোজা মাকরুহ হওয়ার কারণ

১. সারা দিন রোজা সঠিকভাবে করার পরেও সন্ধ্যায় ইফতারের সময় আপনি যদি এমন কোনো খাবার গ্রহণ করেন যেটি ইসলামের দৃষ্টিতে হারাম, তাহলে আপনার রোজাটি মাকরুহ হবে।
২. কোনো কারণ ছাড়াই কিছু চিবাতে থাকলে রোজা মাকরুহ হবে।
৩. কোনো কিছু স্রেফ মুখে পুরে রাখলেন, খেলেন না তাতেও রোজা মাকরুহ হবে।
৪. গড়গড়া করা বা নাকের ভেতর পানি টেনে নেওয়ায় রোজা মাকরুহ হয়। আর এসব করার সময় পেটে পানি চলে গেলে রোজা ভেঙে যায়।
৫. মুখের লালা স্বাভাবিক প্রক্রিয়ায় পেটে গেলে ক্ষতি নেই, তবে ইচ্ছাকৃত দীর্ঘ সময় মুখে থুতু ধরে রেখে পরে গিলে ফেললে রোজা মাকরুহ হবে।
৬. রমজানের সারা দিন শরীর নাপাক রাখলেও রোজা মাকরুহ হবে।
৭. পাউডার, পেস্ট ও মাজন দিয়ে দাঁত পরিষ্কার করলে রোজা মাকরুহ হয়ে যায়।
৮. মুখে গুল ব্যবহারে মাকরুহ হয় এবং থুতুর সঙ্গে গুল গলার ভেতর চলে গেলে রোজা ভেঙে যাবে।
৯. রোজা রেখে কারো গিবত করলে বা পরনিন্দা করলে রোজা মাকরুহ হয়।
১০. মিথ্যা কথা বলা মহাপাপ। রোজা রেখে এ কাজটি করলে তা মাকরুহ হবে।
১১. রোজা রেখে ঝগড়া-বিবাদ করলে রোজা মাকরুহ হবে।
১২. যৌন উদ্দীপক কিছু দেখা বা শোনা থেকে বিরত থাকতে হবে। এতেও রোজা মাকরুহ হয়।
১৩. নাচ, গান, সিনেমা দেখা ও তাতে মজে থাকলে রোজা মাকরুহ হয়।
১৪. রান্নার সময় রোজাদার কোনো কিছুর স্বাদ নিলে, লবন চেখে দেখলে, ঝাল পরীক্ষা করলে মাকরুহ হয়। তবে বিশেষ প্রয়োজনে সেটা যদি করতেই হয়, তাহলে বৈধ হিসেবে ধরে নেওয়া হয়।

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

যে ১৪টি কারণে রোজা মাকরুহ হয়

আপডেট সময় : ০৭:১৪:৫৩ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৮ মার্চ ২০২৩

ইসলাম ধর্মে রোজা একটি ফরজ ইবাদত। ইসলামের পাঁচটি মূল স্তম্ভের মধ্যে রোজা তৃতীয়। তাই পবিত্র রমজান মাসে বিশ্বের সব ধর্মপ্রাণ মুসলমান রোজা রাখার ধর্মীয় বিধান পালন করে থাকেন। এ মাসজুড়ে মুসল্লিরা আল্লাহর সন্তুষ্টি লাভে রোজা রাখেন। ইবাদতে মশগুল হন। দান-সদকা করেন।

এই রোজা পালনের কিছু বিধিবিধান রয়েছে। সেসব পালন না করলে রোজা মাকরুহ বা ভেঙে যেতে পারে। তাই সবরকম বিধিবিধান মেনে অত্যন্ত পবিত্রতার সঙ্গে রোজা পালন করতে বলা হয়েছে। অন্যথায় ছোটখাটো কিছু ভুল থেকে শুরু করে বড় বড় কিছু কাজে রোজা মাকরুহ হয়ে যেতে পারে। এর পবিত্রতা নষ্ট হতে পারে।

রোজা মাকরুহ হওয়ার কারণ

১. সারা দিন রোজা সঠিকভাবে করার পরেও সন্ধ্যায় ইফতারের সময় আপনি যদি এমন কোনো খাবার গ্রহণ করেন যেটি ইসলামের দৃষ্টিতে হারাম, তাহলে আপনার রোজাটি মাকরুহ হবে।
২. কোনো কারণ ছাড়াই কিছু চিবাতে থাকলে রোজা মাকরুহ হবে।
৩. কোনো কিছু স্রেফ মুখে পুরে রাখলেন, খেলেন না তাতেও রোজা মাকরুহ হবে।
৪. গড়গড়া করা বা নাকের ভেতর পানি টেনে নেওয়ায় রোজা মাকরুহ হয়। আর এসব করার সময় পেটে পানি চলে গেলে রোজা ভেঙে যায়।
৫. মুখের লালা স্বাভাবিক প্রক্রিয়ায় পেটে গেলে ক্ষতি নেই, তবে ইচ্ছাকৃত দীর্ঘ সময় মুখে থুতু ধরে রেখে পরে গিলে ফেললে রোজা মাকরুহ হবে।
৬. রমজানের সারা দিন শরীর নাপাক রাখলেও রোজা মাকরুহ হবে।
৭. পাউডার, পেস্ট ও মাজন দিয়ে দাঁত পরিষ্কার করলে রোজা মাকরুহ হয়ে যায়।
৮. মুখে গুল ব্যবহারে মাকরুহ হয় এবং থুতুর সঙ্গে গুল গলার ভেতর চলে গেলে রোজা ভেঙে যাবে।
৯. রোজা রেখে কারো গিবত করলে বা পরনিন্দা করলে রোজা মাকরুহ হয়।
১০. মিথ্যা কথা বলা মহাপাপ। রোজা রেখে এ কাজটি করলে তা মাকরুহ হবে।
১১. রোজা রেখে ঝগড়া-বিবাদ করলে রোজা মাকরুহ হবে।
১২. যৌন উদ্দীপক কিছু দেখা বা শোনা থেকে বিরত থাকতে হবে। এতেও রোজা মাকরুহ হয়।
১৩. নাচ, গান, সিনেমা দেখা ও তাতে মজে থাকলে রোজা মাকরুহ হয়।
১৪. রান্নার সময় রোজাদার কোনো কিছুর স্বাদ নিলে, লবন চেখে দেখলে, ঝাল পরীক্ষা করলে মাকরুহ হয়। তবে বিশেষ প্রয়োজনে সেটা যদি করতেই হয়, তাহলে বৈধ হিসেবে ধরে নেওয়া হয়।