মাত্র দুই হাজার টাকার জন্য বন্ধুকে গলা কেটে হত্যাচেষ্টা

  • অনলাইন ডেস্ক
  • আপডেট সময় : ০৭:৩৬:৪৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৭ মে ২০২৩
  • ১৬৬৬ বার পড়া হয়েছে

রাজধানীর মিরপুরের লাভ রোডে মাত্র দুই হাজার টাকার জন্য জাহাঙ্গীর আলম (২৭) নামে এক যুবককে গলাকেটে হত্যাচেষ্টার অভিযোগে তার দুই বন্ধুকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গতকাল শুক্রবার রাতে এ ঘটনা ঘটে।

গ্রেপ্তার ব্যক্তিরা হলেন- সাগর (৩২) ও শাহেদ (৩৫)। আজ শনিবার দুপুরে মিরপুর মডেল থানার ওসি মোহাম্মদ মহসীন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

ওসি মহসীন জানান, জাহাঙ্গীর পেশায় গাড়ি চালানোর পাশাপাশি মোটর মেকানিক হিসেবে কাজ করতেন। তার বন্ধু সাগর ও শাহেদও মোটর মেকানিক। জাহাঙ্গীরের কাছ থেকে দুই হাজার টাকা পেতেন সাগর। এই টাকা নিয়ে দুজনের মধ্যে কথা কাটাকাটিকে কেন্দ্র করে জাহাঙ্গীরকে হত্যার পরিকল্পনা করেন সাগর ও শাহেদ। প্রথমে তিন বন্ধু মোটরসাইকেলে চড়ে বিভিন্ন স্থানে ঘুরেন। শাহেদ বাইক চালাচ্ছিলেন আর সাগর পেছনে বসে মাঝে জাহাঙ্গীরকে বসান। এ সময় তারা তিনজনই মদ্যপ ছিলেন।

তিনি জানান, শুক্রবার রাত পৌনে ১২টার দিকে মোটরসাইকেল নিয়ে মিরপুরের লাভ রোড এলাকায় পৌঁছাতেই চলন্ত মোটরসাইকেলেই সাগর ক্ষুর দিয়ে জাহাঙ্গীরের গলা কেটে দেন এবং চলন্ত গাড়ি থেকে ফেলে দেন। গলাকাটা অবস্থায় জাহাঙ্গীর হেঁটে হেঁটে কিছু দূর যান এবং কয়েকজনের কাছে সহযোগিতা চান। কিন্তু তার অবস্থা দেখে সবাই ভয় পেয়ে যায়। পরে পুলিশ গিয়ে তাকে উদ্ধার করে প্রথমে সোহরাওয়ার্দী হাসপাতাল ও পরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করায়।

ওসি মহসীন জানান, বর্তমানে জাহাঙ্গীর আশঙ্কামুক্ত হলেও তার শ্বাসনালি কেটে গেছে। এ ঘটনায় জাহাঙ্গীরের বাবা আব্দুল হালিম একটি মামলা করেছেন। মামলার দুই আসামি সাগর ও শাহেদকে রাতেই গ্রেপ্তার করা হয়। হত্যাচেষ্টায় ব্যবহৃত ছুরি, মোটরসাইকেল ও আসামির রক্তমাখা জামা উদ্ধার করা হয়েছে।

ট্যাগস :

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

মাত্র দুই হাজার টাকার জন্য বন্ধুকে গলা কেটে হত্যাচেষ্টা

আপডেট সময় : ০৭:৩৬:৪৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৭ মে ২০২৩

রাজধানীর মিরপুরের লাভ রোডে মাত্র দুই হাজার টাকার জন্য জাহাঙ্গীর আলম (২৭) নামে এক যুবককে গলাকেটে হত্যাচেষ্টার অভিযোগে তার দুই বন্ধুকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গতকাল শুক্রবার রাতে এ ঘটনা ঘটে।

গ্রেপ্তার ব্যক্তিরা হলেন- সাগর (৩২) ও শাহেদ (৩৫)। আজ শনিবার দুপুরে মিরপুর মডেল থানার ওসি মোহাম্মদ মহসীন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

ওসি মহসীন জানান, জাহাঙ্গীর পেশায় গাড়ি চালানোর পাশাপাশি মোটর মেকানিক হিসেবে কাজ করতেন। তার বন্ধু সাগর ও শাহেদও মোটর মেকানিক। জাহাঙ্গীরের কাছ থেকে দুই হাজার টাকা পেতেন সাগর। এই টাকা নিয়ে দুজনের মধ্যে কথা কাটাকাটিকে কেন্দ্র করে জাহাঙ্গীরকে হত্যার পরিকল্পনা করেন সাগর ও শাহেদ। প্রথমে তিন বন্ধু মোটরসাইকেলে চড়ে বিভিন্ন স্থানে ঘুরেন। শাহেদ বাইক চালাচ্ছিলেন আর সাগর পেছনে বসে মাঝে জাহাঙ্গীরকে বসান। এ সময় তারা তিনজনই মদ্যপ ছিলেন।

তিনি জানান, শুক্রবার রাত পৌনে ১২টার দিকে মোটরসাইকেল নিয়ে মিরপুরের লাভ রোড এলাকায় পৌঁছাতেই চলন্ত মোটরসাইকেলেই সাগর ক্ষুর দিয়ে জাহাঙ্গীরের গলা কেটে দেন এবং চলন্ত গাড়ি থেকে ফেলে দেন। গলাকাটা অবস্থায় জাহাঙ্গীর হেঁটে হেঁটে কিছু দূর যান এবং কয়েকজনের কাছে সহযোগিতা চান। কিন্তু তার অবস্থা দেখে সবাই ভয় পেয়ে যায়। পরে পুলিশ গিয়ে তাকে উদ্ধার করে প্রথমে সোহরাওয়ার্দী হাসপাতাল ও পরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করায়।

ওসি মহসীন জানান, বর্তমানে জাহাঙ্গীর আশঙ্কামুক্ত হলেও তার শ্বাসনালি কেটে গেছে। এ ঘটনায় জাহাঙ্গীরের বাবা আব্দুল হালিম একটি মামলা করেছেন। মামলার দুই আসামি সাগর ও শাহেদকে রাতেই গ্রেপ্তার করা হয়। হত্যাচেষ্টায় ব্যবহৃত ছুরি, মোটরসাইকেল ও আসামির রক্তমাখা জামা উদ্ধার করা হয়েছে।