ফেইসবুকে ইসলাম বিরোধী পোস্ট দেয়াকে কেন্দ্র করে একজনকে ছুরিকাঘাত

  • অনলাইন ডেস্ক
  • আপডেট সময় : ০৫:২০:৫৪ অপরাহ্ন, সোমবার, ৫ জুন ২০২৩
  • ১৬৬১ বার পড়া হয়েছে

গতকাল রোববার সন্ধ্যার পর কাফরুলে এক ব্যক্তির ফেসবুকে ধর্মীয় কটূক্তিমূলক পোস্ট দেয়াকে কেন্দ্র করে রাজধানীর মিরপুর-১৩ নম্বরে এক যুবককে মারধর ও ছুরিকাঘাতের ঘটনা ঘটেছে। আহত যুবক পুলিশ হেফাজতে চিকিৎসাধীন আছে।

ঘটনার পর পুলিশ সেখানে গেলে একপর্যায়ে স্থানীয়রা পুলিশের সাথে সংঘর্ষে জড়ায় ও ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া হয়। এসময় পুলিশসহ বেশ কয়েকজন আহত হলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ কাঁদানে গ্যাস ছোড়ে। অভিযুক্তের দাবী তার ফেসবুক অ্যাকাউন্ট হ্যাক করে ইসলামবিরোধী একটি স্ট্যাটাস দিয়েছে কেউ।

পরে এটিকে কেন্দ্র করে স্থানীয় কয়েকজন তাকে ডেকে মারামারির এক পর্যায়ে তার পেটে ছুরিকাঘাত করে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে সংঘর্ষে জড়িত কয়েকজনকে থানায় আটক করা হয়েছে। পুলিশের দায়িত্বরত কর্মকর্তারা জানান, স্থানীয়দের বুঝিয়ে ঘটনাস্থল থেকে সরিয়ে দেয়া হলেও সুযোগ সন্ধানী কেউ কেউ উত্তেজনা তৈরি করার চেষ্টা করছে।

ঢাকা মেট্রোপলিশন পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার ড. মুহিত উদ্দিন জানান, আমরা স্থানীয়দের বুঝিয়ে শান্ত করার চেষ্টা করেছি। কিন্তু যার বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে তাকে আমরা কাস্টডিতে নিয়েছি। এমন পোস্টের পক্ষে তো কেউ নয়। আমি নিজেও নই। এলাকার স্থিতিশীলতা বজায় রাখতে সকলকে সচেতন থাকার অনুরোধ করা হয়েছে।

ট্যাগস :

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

ফেইসবুকে ইসলাম বিরোধী পোস্ট দেয়াকে কেন্দ্র করে একজনকে ছুরিকাঘাত

আপডেট সময় : ০৫:২০:৫৪ অপরাহ্ন, সোমবার, ৫ জুন ২০২৩

গতকাল রোববার সন্ধ্যার পর কাফরুলে এক ব্যক্তির ফেসবুকে ধর্মীয় কটূক্তিমূলক পোস্ট দেয়াকে কেন্দ্র করে রাজধানীর মিরপুর-১৩ নম্বরে এক যুবককে মারধর ও ছুরিকাঘাতের ঘটনা ঘটেছে। আহত যুবক পুলিশ হেফাজতে চিকিৎসাধীন আছে।

ঘটনার পর পুলিশ সেখানে গেলে একপর্যায়ে স্থানীয়রা পুলিশের সাথে সংঘর্ষে জড়ায় ও ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া হয়। এসময় পুলিশসহ বেশ কয়েকজন আহত হলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ কাঁদানে গ্যাস ছোড়ে। অভিযুক্তের দাবী তার ফেসবুক অ্যাকাউন্ট হ্যাক করে ইসলামবিরোধী একটি স্ট্যাটাস দিয়েছে কেউ।

পরে এটিকে কেন্দ্র করে স্থানীয় কয়েকজন তাকে ডেকে মারামারির এক পর্যায়ে তার পেটে ছুরিকাঘাত করে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে সংঘর্ষে জড়িত কয়েকজনকে থানায় আটক করা হয়েছে। পুলিশের দায়িত্বরত কর্মকর্তারা জানান, স্থানীয়দের বুঝিয়ে ঘটনাস্থল থেকে সরিয়ে দেয়া হলেও সুযোগ সন্ধানী কেউ কেউ উত্তেজনা তৈরি করার চেষ্টা করছে।

ঢাকা মেট্রোপলিশন পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার ড. মুহিত উদ্দিন জানান, আমরা স্থানীয়দের বুঝিয়ে শান্ত করার চেষ্টা করেছি। কিন্তু যার বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে তাকে আমরা কাস্টডিতে নিয়েছি। এমন পোস্টের পক্ষে তো কেউ নয়। আমি নিজেও নই। এলাকার স্থিতিশীলতা বজায় রাখতে সকলকে সচেতন থাকার অনুরোধ করা হয়েছে।