আগামীকাল খুলনা সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন

  • প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৮:২৭:৫৪ অপরাহ্ন, রবিবার, ১১ জুন ২০২৩
  • ১৬৫৭ বার পড়া হয়েছে

কঠোর নিরাপত্তার মধ্যে উৎসবমুখর পরিবেশে আগামীকাল খুলনা সিটি কর্পোরেশন (কেসিস)  নির্বাচন-২০২৩ অুষ্ঠিত হবে। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে। আগামীকাল সকাল ৮ টা থেকে বিকাল ৪ টা পর্যন্ত  ২৮৯টি ভোট কেন্দ্রের ১,৭৩২ টি বুথে প্রায় ৩ হাজার ইলেক্ট্রিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) ব্যবহার করে এই ভোট অনুষ্ঠিত হবে। এদিকে এই অঞ্চলের সকল ভোটার যাতে তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পারে, তার জন্য নির্বাচন কমিশনের ইচ্ছার পরিপ্রেক্ষিতে জনপ্রশাসন মন্ত্রনালয় কেসিসি’র নির্বাচনী  এলাকায় আগামীকাল  সরকারি ছুটি ঘোষণা করেছে।

এবছর কেসিসি নির্বাচনে মেয়র পদে যে ৫জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন তারা হলেন-  আওয়ামী লীগ সমর্থিত তালুকদার আব্দুল খালেক (নৌকা), জাতীয় পার্টির শফিকুল ইসলাম মধু (লাঙ্গল), বাংলাদেশ ইসলামী আন্দেলনের মাওলানা আব্দুল আউয়াল ( হাত পাখা),জাকের পার্টির এসএম সাব্বির হোসেন (গোলাপ ফুল) এবং স্বতন্ত্র পার্থী শফিকুল রহমান (টেবিল ঘড়ি)।

মেয়র পদে ৫ জন, ৩১টি সাধারণ কাউন্সিলর পদে ১৩৪জন এবং ১০টি সংরক্ষিত নারী আসনে ৩৯জনসহ মোট ১৭৩জন  প্রার্থী  কেসিসি নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।এদিকে কেসিসি নির্বাচনের রিটানিং অফিসার মো. আলাউদ্দিন এবং খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশের (কেএমপি) কমিশনার মাসুদুর রহমান ভুইয়া আজ নগরীর বয়রা পুলিশ লাইন মাঠে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের জানান, কেসিসি নির্বাচন শান্তিপূর্ণভাবে সম্পন্ন করার জন্য তিন স্তরের নিরাপত্তা চাদরে ঢেকে ফেলা হয়েছে গোটা এলাকা। কেএমপি কমিশনার জানান, ৪ হাজার ৫২০ পুলিশ সদস্য, ৩শ’ এপিবিএন, ৩ হাজার ৪৬৮ আনসারসহ মোট প্রায় ৮ হাজার ৩শ’ আইন-শৃংখলা বাহিনী সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে। ৮টি রিজার্ভ  ফোর্স এবং ৫টি স্ট্যান্ডবাই ফোর্সসহ  ১৫টি স্ট্রাইকিং ফোর্স টিম,৬২টি মোবাইল পেট্রোল টিম মোতায়েন করা হয়েছে।  এছাড়াও অন্তত ১১ প্লাটুন বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) নগর এলাকায় মোতায়েন করা হয়েছে। অপরদিকে ৫ প্লাটুন রিজার্ভ হিসাবে রাখা হয়েছে।

রির্টানিং অফিসার জানান, কেসিসি নির্বাচন অবাধ,নিরপেক্ষ ও শান্তিপূর্ণভাবে সম্পন্ন করার জন্য ইতোমধ্যে ব্যাপক প্রস্ততি গ্রহণ করা হয়েছে। তিনি বলেন, নির্বাচনী  বুথের ভেতরে এবং  বাইরে মোট ২ হাজার ৩২০টি সিসিটিভি ক্যামেরা বসানো হয়েছে।  ভোটার ছাড়া অন্য কাউকে ভোট কেন্দ্রের ভেতরে প্রবেশ করতে দেওয়া হবে না। তাছাড়া এই নির্বাচনে যেকোন অনিয়মের বিরুদ্ধে ইসি কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।এদিকে সরকারি জেলা স্কুল মাঠে  আজ এক প্রেস ব্রিফিংয়ে র‌্যাব-৬ এর কমান্ডিং অফিসার লে.কর্ণেল ফিরোজ কবীর বলেন, কেসিসি নির্বাচনকে কেন্দ্র করে র‌্যাবের মোট ১৬টি স্ট্রাইকিং ফোর্স  মোতায়েন  করা হয়েছে। তাছাড়া  র‌্যাবের বোমা নিস্ক্রীয়করণ ইউনিট ২৮৯টি ভোট কেন্দ্রের প্রতিটি বুথে বিস্ফোরক লুকানো আছে কি না, তা খুঁজে দেখছে।কেসিসি নির্বাচনে ২ লাখ ৬৮ হাজার ৮২৮ জন পুরুষ ভোটার এবং ২ লাখ ৬৬ হাজার ৬৯৮ জন নারী ভোটারসহ মোট ৫ লাখ ৩৫ হাজার ৫২২ ভোটার তাদের ভোধিকার প্রয়োগ করবেন।

ট্যাগস :

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য

আগামীকাল খুলনা সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন

আপডেট সময় : ০৮:২৭:৫৪ অপরাহ্ন, রবিবার, ১১ জুন ২০২৩

কঠোর নিরাপত্তার মধ্যে উৎসবমুখর পরিবেশে আগামীকাল খুলনা সিটি কর্পোরেশন (কেসিস)  নির্বাচন-২০২৩ অুষ্ঠিত হবে। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে। আগামীকাল সকাল ৮ টা থেকে বিকাল ৪ টা পর্যন্ত  ২৮৯টি ভোট কেন্দ্রের ১,৭৩২ টি বুথে প্রায় ৩ হাজার ইলেক্ট্রিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) ব্যবহার করে এই ভোট অনুষ্ঠিত হবে। এদিকে এই অঞ্চলের সকল ভোটার যাতে তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পারে, তার জন্য নির্বাচন কমিশনের ইচ্ছার পরিপ্রেক্ষিতে জনপ্রশাসন মন্ত্রনালয় কেসিসি’র নির্বাচনী  এলাকায় আগামীকাল  সরকারি ছুটি ঘোষণা করেছে।

এবছর কেসিসি নির্বাচনে মেয়র পদে যে ৫জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন তারা হলেন-  আওয়ামী লীগ সমর্থিত তালুকদার আব্দুল খালেক (নৌকা), জাতীয় পার্টির শফিকুল ইসলাম মধু (লাঙ্গল), বাংলাদেশ ইসলামী আন্দেলনের মাওলানা আব্দুল আউয়াল ( হাত পাখা),জাকের পার্টির এসএম সাব্বির হোসেন (গোলাপ ফুল) এবং স্বতন্ত্র পার্থী শফিকুল রহমান (টেবিল ঘড়ি)।

মেয়র পদে ৫ জন, ৩১টি সাধারণ কাউন্সিলর পদে ১৩৪জন এবং ১০টি সংরক্ষিত নারী আসনে ৩৯জনসহ মোট ১৭৩জন  প্রার্থী  কেসিসি নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।এদিকে কেসিসি নির্বাচনের রিটানিং অফিসার মো. আলাউদ্দিন এবং খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশের (কেএমপি) কমিশনার মাসুদুর রহমান ভুইয়া আজ নগরীর বয়রা পুলিশ লাইন মাঠে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের জানান, কেসিসি নির্বাচন শান্তিপূর্ণভাবে সম্পন্ন করার জন্য তিন স্তরের নিরাপত্তা চাদরে ঢেকে ফেলা হয়েছে গোটা এলাকা। কেএমপি কমিশনার জানান, ৪ হাজার ৫২০ পুলিশ সদস্য, ৩শ’ এপিবিএন, ৩ হাজার ৪৬৮ আনসারসহ মোট প্রায় ৮ হাজার ৩শ’ আইন-শৃংখলা বাহিনী সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে। ৮টি রিজার্ভ  ফোর্স এবং ৫টি স্ট্যান্ডবাই ফোর্সসহ  ১৫টি স্ট্রাইকিং ফোর্স টিম,৬২টি মোবাইল পেট্রোল টিম মোতায়েন করা হয়েছে।  এছাড়াও অন্তত ১১ প্লাটুন বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) নগর এলাকায় মোতায়েন করা হয়েছে। অপরদিকে ৫ প্লাটুন রিজার্ভ হিসাবে রাখা হয়েছে।

রির্টানিং অফিসার জানান, কেসিসি নির্বাচন অবাধ,নিরপেক্ষ ও শান্তিপূর্ণভাবে সম্পন্ন করার জন্য ইতোমধ্যে ব্যাপক প্রস্ততি গ্রহণ করা হয়েছে। তিনি বলেন, নির্বাচনী  বুথের ভেতরে এবং  বাইরে মোট ২ হাজার ৩২০টি সিসিটিভি ক্যামেরা বসানো হয়েছে।  ভোটার ছাড়া অন্য কাউকে ভোট কেন্দ্রের ভেতরে প্রবেশ করতে দেওয়া হবে না। তাছাড়া এই নির্বাচনে যেকোন অনিয়মের বিরুদ্ধে ইসি কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।এদিকে সরকারি জেলা স্কুল মাঠে  আজ এক প্রেস ব্রিফিংয়ে র‌্যাব-৬ এর কমান্ডিং অফিসার লে.কর্ণেল ফিরোজ কবীর বলেন, কেসিসি নির্বাচনকে কেন্দ্র করে র‌্যাবের মোট ১৬টি স্ট্রাইকিং ফোর্স  মোতায়েন  করা হয়েছে। তাছাড়া  র‌্যাবের বোমা নিস্ক্রীয়করণ ইউনিট ২৮৯টি ভোট কেন্দ্রের প্রতিটি বুথে বিস্ফোরক লুকানো আছে কি না, তা খুঁজে দেখছে।কেসিসি নির্বাচনে ২ লাখ ৬৮ হাজার ৮২৮ জন পুরুষ ভোটার এবং ২ লাখ ৬৬ হাজার ৬৯৮ জন নারী ভোটারসহ মোট ৫ লাখ ৩৫ হাজার ৫২২ ভোটার তাদের ভোধিকার প্রয়োগ করবেন।