বর্ষার শুরুতে হেমন্তের জন্মদিন

  • লিংকন আহম্মেদ
  • আপডেট সময় : ১১:১২:৫২ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১৬ জুন ২০২৩
  • ১৬৭৬ বার পড়া হয়েছে

বর্ষার দ্বিতীয় দিবস আজ। হেমন্ত বেশ দূরে। তবু আজ সারাটাদিন ছিল যেন হেমন্তময়।  কারন কালজয়ী সঙ্গীত শিল্পী হেমন্ত মুখোপাধ্যায়ের আজ জন্মদিন।

বাঙ্গালীদের কাছে বাংলা গানের জন্য যিনি হেমন্ত বাবু বা হেমন্ত মুখোপাধ্যায় নামে পরিচিত। ঠিক একিরকম ভাবে তিনি অবাঙ্গালীদের কাছে পরিচিত  ছিলেন হেমন্ত কুমার নামে ।

১৯২০ সালের ১৬ জুন ভারতের কাশীতে তিনি জন্মগ্রহন করেন।  তাদের আদি নিবাস ছিল পশ্চিম বঙ্গের উত্তর চব্বিশ পরগনার জয়নগরে। তাঁর ছেলে বেলা কেটেছে জয়নগরের বহেড়ু গ্রামে। বিংশ শতকের গোড়ার দিকে তাঁর পরিবার কোলকাতায় বসবাস করতে শুরু করেন। হেমন্ত মুখোপাধ্যায়রা ছিলেন চার ভাই ও এক বোন। বড়ো ভাই শক্তিদাস মুখোপাধ্যায় চাকরি করতেন,সেজো ভাই তারাজ্যোতি ছোটো গল্প লিখতেন আর ছোট ভাই অমল মুখোপাধ্যায় কিছু বাংলা চলচ্চিত্রে সঙ্গীত পরিচালনা করেছিলেন

শিক্ষাজিবনে ভবানীপুরের মিত্র ইন্সটিটউশনে হেমন্ত মুখোপাধ্যাইয়ের সাথে বন্ধুত্ব হয় কবি সুভাষ মুখোপাধ্যায়ের সাথে।  হেমন্তের প্রতিভায় মুগ্ধ হয়ে তিনি তাকে আকাশবাণী কোলকাতা অফিসে নিয়ে যান। পরবর্তিতে শৈলেশ দাত্তগুপ্তের সহযোগিতায় মাত্র ১৪ বছর বয়সে রেডিওতে গান গান তিনি ।

হেমেন্ত মুখোপাধ্যায়কে বাদ দিয়ে বাংলা আধুনিক গান কল্পনা করা যায়না। রবীন্দ্রসঙ্গীত, রজনীকান্তের গান  বাংলা আধুনিক, বাংলা ফোক, বাংলা ও হিন্দি সিনেমার গানের  জগতে  তিনি অপ্রতিদ্বন্দি একজন শিল্পী ছিলেন। এছাড়াও তিনি ছিলেন একজন অসামান্য সুরকার এবং সংগীত পরিচালক। পথের ক্লান্তি ভুলে স্নেহ ভরা কোলে তব মাগো বলো কবে শীতল হবো,ও নদীরে একটি কথা শুধাই শুধু তোমারে,আয় খুকু আয়, মুছে যাওয়া দিনগুলি আমায় যে পিছু ডাকে,ও আকাশ প্রদীপ জ্বেলোনা, আমি দূর হতে তোমারেই দেখেছি আর মুগ্ধ এ চোখে চেয়ে থেকেছি,এই রাত তোমার আমার ঐ চাঁদ তোমার আমার ,মেঘ কালো  আঁধার কালো আর কলঙ্ক যে কালো,রানার ছুটেছে তাই ঝুমঝুম ঘণ্টা বাজছে রাতে  এই জনপ্রিয় গান গুলো কোটি কোটি বাঙ্গালির  হৃদয়ে অবিরত বেজে চলছে এখনো।

হেমন্ত মুখোপাধ্যায় জিবনে অসংখ্য পুরষ্কার পেয়েছেন। ১৯৭০ সালে তিনি পদ্মশ্রী এবং ১৯৮৭ সালে পদ্মভুষণ পুরষ্কার লাভ করেন। এছাড়াও অসংখ্য ফিল্মফেয়ার ও জাতীয় পুরষ্কার লাভ করেন তিনি । ১৯৮৫:  বিশ্বভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ের সাম্মানিক ডি.লিট,১৯৮৬: সংগীত নাটক আকাদেমী পুরষ্কার  ১৯৮৯: মাইকেল মধুসূদন পুরস্কার,১৯৭১: প্রথম ভারতীয় গায়ক হিসেবে হলিউডের সিনেমায় নেপথ্য কন্ঠ দান ও আমেরিকা সরকার কর্তৃক,বাল্টিমোর এর নাগরিকত্ব লাভ,২০১২: বাংলাদেশের স্বাধীনতা মৈত্রী পুরস্কার (মরণোত্তর) লাভ করেন হেমন্ত মুখোপাধ্যায়।

১৯৮৯ সালের ২৭ ডিসেম্বর এই মহান শিল্পী মৃত্যুবরণ করেন।

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

বর্ষার শুরুতে হেমন্তের জন্মদিন

আপডেট সময় : ১১:১২:৫২ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১৬ জুন ২০২৩

বর্ষার দ্বিতীয় দিবস আজ। হেমন্ত বেশ দূরে। তবু আজ সারাটাদিন ছিল যেন হেমন্তময়।  কারন কালজয়ী সঙ্গীত শিল্পী হেমন্ত মুখোপাধ্যায়ের আজ জন্মদিন।

বাঙ্গালীদের কাছে বাংলা গানের জন্য যিনি হেমন্ত বাবু বা হেমন্ত মুখোপাধ্যায় নামে পরিচিত। ঠিক একিরকম ভাবে তিনি অবাঙ্গালীদের কাছে পরিচিত  ছিলেন হেমন্ত কুমার নামে ।

১৯২০ সালের ১৬ জুন ভারতের কাশীতে তিনি জন্মগ্রহন করেন।  তাদের আদি নিবাস ছিল পশ্চিম বঙ্গের উত্তর চব্বিশ পরগনার জয়নগরে। তাঁর ছেলে বেলা কেটেছে জয়নগরের বহেড়ু গ্রামে। বিংশ শতকের গোড়ার দিকে তাঁর পরিবার কোলকাতায় বসবাস করতে শুরু করেন। হেমন্ত মুখোপাধ্যায়রা ছিলেন চার ভাই ও এক বোন। বড়ো ভাই শক্তিদাস মুখোপাধ্যায় চাকরি করতেন,সেজো ভাই তারাজ্যোতি ছোটো গল্প লিখতেন আর ছোট ভাই অমল মুখোপাধ্যায় কিছু বাংলা চলচ্চিত্রে সঙ্গীত পরিচালনা করেছিলেন

শিক্ষাজিবনে ভবানীপুরের মিত্র ইন্সটিটউশনে হেমন্ত মুখোপাধ্যাইয়ের সাথে বন্ধুত্ব হয় কবি সুভাষ মুখোপাধ্যায়ের সাথে।  হেমন্তের প্রতিভায় মুগ্ধ হয়ে তিনি তাকে আকাশবাণী কোলকাতা অফিসে নিয়ে যান। পরবর্তিতে শৈলেশ দাত্তগুপ্তের সহযোগিতায় মাত্র ১৪ বছর বয়সে রেডিওতে গান গান তিনি ।

হেমেন্ত মুখোপাধ্যায়কে বাদ দিয়ে বাংলা আধুনিক গান কল্পনা করা যায়না। রবীন্দ্রসঙ্গীত, রজনীকান্তের গান  বাংলা আধুনিক, বাংলা ফোক, বাংলা ও হিন্দি সিনেমার গানের  জগতে  তিনি অপ্রতিদ্বন্দি একজন শিল্পী ছিলেন। এছাড়াও তিনি ছিলেন একজন অসামান্য সুরকার এবং সংগীত পরিচালক। পথের ক্লান্তি ভুলে স্নেহ ভরা কোলে তব মাগো বলো কবে শীতল হবো,ও নদীরে একটি কথা শুধাই শুধু তোমারে,আয় খুকু আয়, মুছে যাওয়া দিনগুলি আমায় যে পিছু ডাকে,ও আকাশ প্রদীপ জ্বেলোনা, আমি দূর হতে তোমারেই দেখেছি আর মুগ্ধ এ চোখে চেয়ে থেকেছি,এই রাত তোমার আমার ঐ চাঁদ তোমার আমার ,মেঘ কালো  আঁধার কালো আর কলঙ্ক যে কালো,রানার ছুটেছে তাই ঝুমঝুম ঘণ্টা বাজছে রাতে  এই জনপ্রিয় গান গুলো কোটি কোটি বাঙ্গালির  হৃদয়ে অবিরত বেজে চলছে এখনো।

হেমন্ত মুখোপাধ্যায় জিবনে অসংখ্য পুরষ্কার পেয়েছেন। ১৯৭০ সালে তিনি পদ্মশ্রী এবং ১৯৮৭ সালে পদ্মভুষণ পুরষ্কার লাভ করেন। এছাড়াও অসংখ্য ফিল্মফেয়ার ও জাতীয় পুরষ্কার লাভ করেন তিনি । ১৯৮৫:  বিশ্বভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ের সাম্মানিক ডি.লিট,১৯৮৬: সংগীত নাটক আকাদেমী পুরষ্কার  ১৯৮৯: মাইকেল মধুসূদন পুরস্কার,১৯৭১: প্রথম ভারতীয় গায়ক হিসেবে হলিউডের সিনেমায় নেপথ্য কন্ঠ দান ও আমেরিকা সরকার কর্তৃক,বাল্টিমোর এর নাগরিকত্ব লাভ,২০১২: বাংলাদেশের স্বাধীনতা মৈত্রী পুরস্কার (মরণোত্তর) লাভ করেন হেমন্ত মুখোপাধ্যায়।

১৯৮৯ সালের ২৭ ডিসেম্বর এই মহান শিল্পী মৃত্যুবরণ করেন।