আমের বস্তায় বোমা, উদ্ধারে র‌্যাব-পুলিশ

  • অনলাইন ডেস্ক
  • আপডেট সময় : ০৮:০৬:০৯ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৮ জুন ২০২৩
  • ১৬৫৫ বার পড়া হয়েছে

আমের বস্তায় অধ্যক্ষের ঠিকানায় বোমা, উদ্ধারে র‌্যাব-পুলিশ

নাটোরের গুরুদাসপুরে ‘উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন’ বস্তাভর্তি বোমা উদ্ধার করা হয়েছে। শনিবার (১৭ জুন) সকাল সাড়ে ৯টার দিকে উপজেলার সরকারি বঙ্গবন্ধু টেকনিক্যাল কলেজের অধ্যক্ষের কক্ষের সামনে থেকে এ বোমা উদ্ধার করা হয়। গুরুদাসপুর থানার ওসি মনোয়ারুজ্জামান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

জানা যায়, গুরুদাসপুর পৌর শহরের সরকারি বঙ্গবন্ধু টেকনিক্যাল বিজ্ঞান ও তথ্য প্রযুক্তি অ্যান্ড বিজনেস ম্যানেজমেন্ট ইন্সটিটিউটের অধ্যক্ষের অফিস কক্ষের দরজার সামনে প্লাস্টিকের বস্তায় মোড়ানো একটি লাগেজ রেখে যান। বস্তার ওপরে লেখা ‘প্রিন্সিপাল বঙ্গবন্ধু কলেজ, গুরুদাসপুর-আম্রপালি ৩০ কেজি’। এ ঘটনায় এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।

কলেজের অধ্যক্ষ মো. সাইদুর রহমান সাইদ বলেন, প্রাতিষ্ঠানিক কাজে শনিবার সকালে কলেজে গিয়ে অফিস কক্ষের সামনে সাদা রঙের একটি বস্তা দেখতে পায়। সেখানে লেখা ছিল, ‘গুরুদাসপুর- আম্রপালি ৩০ কেজি। প্রাপক প্রিন্সিপাল, বঙ্গবন্ধু কলেজ, গুরুদাসপুর, নাটোর’ এবং নিচে মোবাইল নম্বর লেখা।’ বস্তাটি দেখে সন্দেহ হওয়ায় থানায় খবর দেয়। কলেজের একটি মহলের সঙ্গে দ্বন্দ্ব চলছে। মূলত তাদেরই কেউ নাশকতার উদ্দেশে বিস্ফোরক রাখতে পারে।

গুরুদাসপুর থানার ওসি মনোয়ারুজ্জামান বলেন, রাজশাহী থেকে আসা র‌্যাবের বোমা নিষ্ক্রিয়কারী একটি দল দুপুর ৩টার দিকে বস্তাটি পরীক্ষা করে। এ সময় র‌্যাবের দলটি বস্তায় বিস্ফোরক দ্রব্য সাদৃশ্য বস্তু থাকার কথা জানান। বিস্ফোরকটি উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন হওয়ায় র‌্যাবের দলটি তা নিষ্ক্রিয় করতে পারেনি। ফলে ঢাকায় র‌্যাবের বোমা নিষ্ক্রিয়কারী দলকে জানানো হয়েছে।

এর আগে ২০২১ সালে ১২ জুলাই গুরুদাসপুর উত্তরনাড়িবাড়ি মোড়ে পরিত্যক্ত অবস্থায় চারটি তাজা বোমা পাওয়া যায়। পরে ঢাকা থেকে আসা র‌্যাবের বোমা নিষ্ক্রিয়কারী দল এসে তা নিষ্ক্রিয় করে।

ট্যাগস :

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য

আমের বস্তায় বোমা, উদ্ধারে র‌্যাব-পুলিশ

আপডেট সময় : ০৮:০৬:০৯ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৮ জুন ২০২৩

নাটোরের গুরুদাসপুরে ‘উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন’ বস্তাভর্তি বোমা উদ্ধার করা হয়েছে। শনিবার (১৭ জুন) সকাল সাড়ে ৯টার দিকে উপজেলার সরকারি বঙ্গবন্ধু টেকনিক্যাল কলেজের অধ্যক্ষের কক্ষের সামনে থেকে এ বোমা উদ্ধার করা হয়। গুরুদাসপুর থানার ওসি মনোয়ারুজ্জামান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

জানা যায়, গুরুদাসপুর পৌর শহরের সরকারি বঙ্গবন্ধু টেকনিক্যাল বিজ্ঞান ও তথ্য প্রযুক্তি অ্যান্ড বিজনেস ম্যানেজমেন্ট ইন্সটিটিউটের অধ্যক্ষের অফিস কক্ষের দরজার সামনে প্লাস্টিকের বস্তায় মোড়ানো একটি লাগেজ রেখে যান। বস্তার ওপরে লেখা ‘প্রিন্সিপাল বঙ্গবন্ধু কলেজ, গুরুদাসপুর-আম্রপালি ৩০ কেজি’। এ ঘটনায় এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।

কলেজের অধ্যক্ষ মো. সাইদুর রহমান সাইদ বলেন, প্রাতিষ্ঠানিক কাজে শনিবার সকালে কলেজে গিয়ে অফিস কক্ষের সামনে সাদা রঙের একটি বস্তা দেখতে পায়। সেখানে লেখা ছিল, ‘গুরুদাসপুর- আম্রপালি ৩০ কেজি। প্রাপক প্রিন্সিপাল, বঙ্গবন্ধু কলেজ, গুরুদাসপুর, নাটোর’ এবং নিচে মোবাইল নম্বর লেখা।’ বস্তাটি দেখে সন্দেহ হওয়ায় থানায় খবর দেয়। কলেজের একটি মহলের সঙ্গে দ্বন্দ্ব চলছে। মূলত তাদেরই কেউ নাশকতার উদ্দেশে বিস্ফোরক রাখতে পারে।

গুরুদাসপুর থানার ওসি মনোয়ারুজ্জামান বলেন, রাজশাহী থেকে আসা র‌্যাবের বোমা নিষ্ক্রিয়কারী একটি দল দুপুর ৩টার দিকে বস্তাটি পরীক্ষা করে। এ সময় র‌্যাবের দলটি বস্তায় বিস্ফোরক দ্রব্য সাদৃশ্য বস্তু থাকার কথা জানান। বিস্ফোরকটি উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন হওয়ায় র‌্যাবের দলটি তা নিষ্ক্রিয় করতে পারেনি। ফলে ঢাকায় র‌্যাবের বোমা নিষ্ক্রিয়কারী দলকে জানানো হয়েছে।

এর আগে ২০২১ সালে ১২ জুলাই গুরুদাসপুর উত্তরনাড়িবাড়ি মোড়ে পরিত্যক্ত অবস্থায় চারটি তাজা বোমা পাওয়া যায়। পরে ঢাকা থেকে আসা র‌্যাবের বোমা নিষ্ক্রিয়কারী দল এসে তা নিষ্ক্রিয় করে।