বুদ্ধি প্রতিবন্ধী ধর্ষণ, বৃদ্ধ কারাগারে

  • অনলাইন ডেস্ক
  • আপডেট সময় : ০১:৫৬:১১ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৫ জুলাই ২০২৩
  • ১৬৬২ বার পড়া হয়েছে

সুনামগঞ্জে জগন্নাথপুর উপজেলায় ১৭ বছর বয়সী এক বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগ করেছে তার পরিবার। গ্রেপ্তারকৃত ব্যক্তি নলছিটি উপজেলার কুশঙ্গল গ্ৰামের মো. এসকেন হাওলাদারের ছেলে আবদুন নূর (৬৫)। উক্ত ব্যাক্তিকে পরবর্তীতে পুলিশ গ্রেফতার করেন। আজ শনিবার (১৫ জুলাই)  তাকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

পুলিশ জানায়, প্রতিবেশী বৃদ্ধ আব্দুর নুর দরিদ্র বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী ওই কিশোরীকে নানা কৌশল অবলম্বন করে একাধিকবার ধর্ষণ করে। পরবর্তীতে কিশোরী অন্তসত্ত্বা হয়ে পড়লে কিশোরীর মা বাদী হয়ে গতকাল জগন্নাথপুর থানায় মামলা করেন। মামলার প্রেক্ষিতে বরিশাল র‍্যাব-৮ ও খুলনা র‍্যাব-৬ এর যৌথ অভিযান চালিয়ে প্রধান আসামি মো. হাবিব হাওলাদারকে খুলনা জেলার খালিশপুর এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করে।

ভুক্তভোগীর মা গণমাধ্যম কর্মীকে জানান, তিনি অন্যের বাড়িতে কাজ করে সংসার চালান যার ফলে বাড়িতে সারাদিন থাকতে পারেন না। এই সুযোগে আব্দুন নুর তাদের বাড়িতে এসে তার মেয়েকে ধর্ষণ করে। মেয়েটির শারীরিক পরিবর্তন দেখে স্বাস্থ্য পরীক্ষার মাধ্যমে জানা যায় মেয়েটি এখন পাঁচ মাসের অন্তঃসত্ত্বা। মেয়েটির মা নিরুপায় হয়ে আইনের আশ্রয় নেন।

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

বুদ্ধি প্রতিবন্ধী ধর্ষণ, বৃদ্ধ কারাগারে

আপডেট সময় : ০১:৫৬:১১ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৫ জুলাই ২০২৩

সুনামগঞ্জে জগন্নাথপুর উপজেলায় ১৭ বছর বয়সী এক বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগ করেছে তার পরিবার। গ্রেপ্তারকৃত ব্যক্তি নলছিটি উপজেলার কুশঙ্গল গ্ৰামের মো. এসকেন হাওলাদারের ছেলে আবদুন নূর (৬৫)। উক্ত ব্যাক্তিকে পরবর্তীতে পুলিশ গ্রেফতার করেন। আজ শনিবার (১৫ জুলাই)  তাকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

পুলিশ জানায়, প্রতিবেশী বৃদ্ধ আব্দুর নুর দরিদ্র বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী ওই কিশোরীকে নানা কৌশল অবলম্বন করে একাধিকবার ধর্ষণ করে। পরবর্তীতে কিশোরী অন্তসত্ত্বা হয়ে পড়লে কিশোরীর মা বাদী হয়ে গতকাল জগন্নাথপুর থানায় মামলা করেন। মামলার প্রেক্ষিতে বরিশাল র‍্যাব-৮ ও খুলনা র‍্যাব-৬ এর যৌথ অভিযান চালিয়ে প্রধান আসামি মো. হাবিব হাওলাদারকে খুলনা জেলার খালিশপুর এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করে।

ভুক্তভোগীর মা গণমাধ্যম কর্মীকে জানান, তিনি অন্যের বাড়িতে কাজ করে সংসার চালান যার ফলে বাড়িতে সারাদিন থাকতে পারেন না। এই সুযোগে আব্দুন নুর তাদের বাড়িতে এসে তার মেয়েকে ধর্ষণ করে। মেয়েটির শারীরিক পরিবর্তন দেখে স্বাস্থ্য পরীক্ষার মাধ্যমে জানা যায় মেয়েটি এখন পাঁচ মাসের অন্তঃসত্ত্বা। মেয়েটির মা নিরুপায় হয়ে আইনের আশ্রয় নেন।